২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | শুক্রবার, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

রাতারাতি কোটিপতি দিনমজুর

প্রকাশিতঃ জুলাই ৬, ২০২০, ৯:২৬ অপরাহ্ণ




আন্তর্জাতিক ডেস্ক
করোনা আর আমফানের প্রকোপে করুণ অবস্থা অসংখ্য পরিবারের। কাজের অভাবে সংসারে খাবারের টান। কোনও ক্রমে যেন দিন কাটে। তবে এমনই এক পরিবারের প্রতি সহায় উপরওয়ালা। লটারি কেটে হাজার-লাখ নয়, একেবারে কোটিপতি হয়ে গেলেন এক দিনমজুর!

একশ বিশ টাকার লটারির টিকিট কিনেছলেন ভারতের মুর্শিদাবাদের খড়গ্রামের দিনমজুর মহরম শেখ। ভাগ্য তার হাতে ধরা দিলো। লটারির প্রথম পুরস্কার হিসেবে এক কোটি টাকা পান তিনি। সংসারের হাল ফেরানোর পাশাপাশি ছেলেদের ভবিষ্যৎও সুনিশ্চিত করার আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছেন কোটিপতি পিতা।

সোমবার খড়গ্রামের কীর্তিপুর গ্রামের বাসিন্দা মহরম শেখ কোটিপতি হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ামাত্রই আনন্দ-উল্লাসে মেতে ওঠেন এলাকার বাসিন্দারা। শুধু জলেই জল বাঁধে না। অভাবের সংসারেও মুখ তুলে চান উপরওয়ালা। মহরম শেখ তারই দৃষ্টান্ত। কী করবেন এই অর্থ দিয়ে? কোটিপতি মহরম বলছেন, এই টাকার একটা অংশ দিয়ে কিছুটা জমি জায়গা কিনে চাষবাস করে সংসার চালাবেন। আর ছেলেদের বাড়িঘর তৈরির কাজে কিছুটা অর্থ দেবেন। কাঁচা বাড়িতে থাকা খুবই কষ্টকর। এবার মাথার উপর পাকা ছাদ হবে ওই পরিবারের।

স্বামী রাতারাতি কোটিপতি হয়ে ওঠায় খুবই খুশি মহরমের স্ত্রী মনোয়ারা বিবি। বলছেন, ‘খুব কষ্ট করে পরের জমিতে দিনমজুরি করে সংসার চালাতে হয়। এবার ঠাকুর মুখ তুলে তাকিয়েছে। আমরা খুব খুশি।’ খড়গ্রাম থানা এলাকার লটারি বিক্রেতা নুর আলম জানান, মহরম শেখ মাঝেমধ্যেই তাঁর দোকানে এসে চা খেতেন, আড্ডা দিতেন এবং দুই-এক ঘর লটারির টিকিট কাটতেন। রোববার সন্ধ্যায় মন খারাপ করে মহরম শেখ তাঁর দোকানে এসে বসেন। আক্ষেপ করে বলেন, লকডাউনে সবই শেষ হয়ে গিয়েছে। কীভাবে সংসার চালাবেন ভেবে কূল পাচ্ছেন না।

বিক্রেতাই আশ্বস্ত করে দোকানে অবশিষ্ট দুই টি টিকিট তাঁর হাতে ধরিয়ে দেন। সোমবার সকালে ফল দেখতে গিয়ে টিকিট মিলিয়ে দেখেন, মহরমই কোটিপতি হয়ে উঠেছেন। ক্রেতার বাড়ি গিয়ে নিজেই সুখবর দিয়ে আসেন। তবে এত পরিমাণ অর্থ সামলে রাখাও মুখের কথা নয়। মহরমের অবশ্য বিশ্বাস, অর্থ যখন এসেছে, উপরওয়ালার কৃপায় তা সুরক্ষিতও থাকবে। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

Leave a Reply