৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | সোমবার, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

বিশ্বের ‘প্রথম’ করোনা ভ্যাকসিনের উৎপাদন শুরু করল রাশিয়া

প্রকাশিতঃ আগস্ট ১৫, ২০২০, ৮:৪০ অপরাহ্ণ




আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আমেরিকা, ভারত, চিন-সহ বিশ্বের তাবড় তাবড় দেশকে পিছনে ফেলে রাশিয়া ঘোষণা করেছে, করোনা মোকাবিলায় তাদের সম্ভাব্য ভ্যাকসিন তৈরি। বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ স্পুটনিক-এর নাম অনুসারে এই ভ্যাকসিনের নাম রাখা হয়েছে স্পুটনিক ফাইভ (৫)। মঙ্গলবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘোষণার পর থেকেই বিশ্বজুড়ে আলোচনার কেন্দ্রে স্পুটনিক-৫। ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজটি তারই এক মেয়েকে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন পুতিন। কিন্তু রাশিয়ার ভ্যাকসিন নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন একাধিক দেশের বিজ্ঞানীরা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা রাশিয়ার ভ্যাকসিনে এখনও পর্যন্ত সবুজ সংকেত দেয়নি। কিন্তু অনেক প্রশ্ন সত্ত্বেও স্পুটনিক ৫-এর উৎপাদন শুরু করে দিল মস্কো।

রাশিয়ার গামালেয়া ইনস্টিটিউট এবং রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের যৌথ উদ্যোগে করোনার ভ্যাকসিন তৈরি করা হয়েছে। ভ্যাকসিনের গবেষণায় টাকা ঢেলেছে রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডও। রাশিয়ার সরকারি সংবাদ সংস্থা ‘স্পুটনিক’ জানিয়েছে, ইতোমধ্যেই ভ্যাকসিনের উৎপাদন শুরু হয়ে গিয়েছে। চলতি মাসের শেষেই তা বাজারে চলে আসবে। গামালেয়া ইনস্টিটিউটের দাবি, করোনার বিরুদ্ধে অন্তত ২ বছর কর্যকর থাকবে এই ভ্যাকসিন। অর্থাৎ শরীরে একবার স্পুটনিক ভি প্রয়োগ করলে অন্তত ২ বছর করোনা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

কিন্তু রাশিয়ার সরকারি বিবৃতি অনুযায়ী, বুধবার থেকে স্পুটনিক ৫-এর তৃতীয় পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু হয়েছে। অর্থাৎ পুতিনের ঘোষণার একদিন পরে শুরু হয়েছে ভ্যাকসিন আবিষ্কারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। তৃতীয় পর্যায়ে বিপুল সংখ্যক মানুষের উপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়। তাদের শরীরে কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখতেও কয়েকমাস লেগে যায়। তাই প্রশ্ন উঠছে, তৃতীয় পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু না করেই কেন তড়িঘড়ি স্পুটনিক ৫ নিয়ে ঘোষণা করে দিল মস্কো? গবেষকদের একাংশের অভিযোগ, বিজ্ঞান ও মানুষের সুরক্ষার চেয়ে দেশের গর্বকেই আগে রেখেছে রাশিয়া। স্পুটনিক ৫-এর কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ভারতীয় বিজ্ঞানীদের একাংশও।

শুধু বিদেশে নয়, নিজের ঘরেও প্রশ্নের মুখে স্পুটনিক ৫। ভ্যাকসিনের ছাড়পত্র দেওয়ার ক্ষেত্রে নিয়ম না মানার অভিযোগে, রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এথিক্স কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন খ্যাতনামা চিকিৎসক অ্যালেকজান্ডার চুচলিন। ভ্যাকসিন তৈরিতে তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞানের কোনও নিয়ম নীতির তোয়াক্কা করা হয়নি বলেও তাঁর অভিযোগ। ঘরে-বাইরে নানা প্রশ্ন উঠলেও সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে মস্কো। ভ্যাকসিন আবিষ্কারের কথা ঢাকঢোল পিটিয়ে ঘোষণা করার পর, এবার স্পুটনিক ৫-এর উৎপাদনও শুরু করে দিয়েছে পুতিনের দেশ।

Leave a Reply