৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | বৃহস্পতিবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

ধর্ষণের পর কিশোরী হত্যার অভিযোগে সড়ক অবরোধ

প্রকাশিতঃ জুলাই ১৯, ২০২০, ৯:১৫ অপরাহ্ণ




পঁচাত্তর রিপোর্ট
মাধ্যমিক উত্তীর্ণ এক কিশোরীর লাশ উদ্ধারকে ঘিরে উত্তাল হয়ে উঠল উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া। রোবাবর সকাল থেকেই চোপড়ার ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে স্থানীয় বাসিন্দারা। দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে অবরোধ শুরু হয়। অবরোধকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ ঘটে। একদিকে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও বেশ কয়েকটি সরকারি বাস আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ব্যাপক লাঠিচার্জ করে। টিয়ার গ্যাসের শেলও নিক্ষেপ করে। এর ফলে গোটা এলাকায় চরম উত্তেজনার পরিস্থিতি তৈরি হয়। এই ঘটনায় দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে বিজেপিও অন্যত্র পথ অবরোধ করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই কিশোরীর দেহ রোববার সকালে বাড়ির কিছুটা দূরে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এদিন সকাল থেকে মেয়ের কোনও খোঁজ না পাওয়ায় থানায় যাওয়ার উদ্যোগ নেয় পরিবারের সদস্যরা। তখনই খবর আসে রাস্তার পাশে একটি মেয়ের দেহ পাওয়া গেছে। পরিবারের অভিযোগ, কিশোরীকে গণধর্ষণ করে বিষ খাইয়েই হত্যা করা হয়েছে।

এই ঘটনার প্রতিবাদে দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে পথ অবরোধ শুরু হয়। সরকারি বাস, পুলিশ ভ্যানে আন্দোলনকারীরা আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। এলাকায় বিশাল পুলিশবাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে। তবে স্থানীয়রা দাবি করতে থাকে যতক্ষণ না দোষী গ্রেফতার হবে তাদের বিক্ষোভ অবরোধ চলবে। যেখানে মেয়েটির লাশ পাওয়া যায় সেখানে সাইকেল, মোবাইল ফোন, ছাতা মিলেছে বলে সূত্রের খবর। দফায় দফায় চলে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ।

এদিকে জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, ঘুমন্ত অবস্থায় ওই কিশোরীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় এবং তাকে ধর্ষণ করে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলা হয়েছে। এই ঘটনার পিছনে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা রয়েছে। এদিকে জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের বক্তব্য, এটা একটা প্রেমঘটিত ঘটনা। কাল রাতে বিষ খেয়েছে। ঘটনার পর থেকে ওই ছেলেটিকে পাওয়া যাচ্ছেনা। তদন্ত করলে বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে। সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

Leave a Reply

এই বিভাগের আরো খবর