১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | মঙ্গলবার, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা দেখে আবেদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত : আইনমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৩১, ২০২০, ৮:১১ অপরাহ্ণ



আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। ছবি সংগৃহীত

পঁচাওর রিপোর্ট:
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সোমবার বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা এবং দরখাস্তে কি লেখা আছে তা বিবেচনা করে তার (খালেদা জিয়া) স্থায়ী মুক্তিতে পরিবারের পক্ষে জমা দেয়া আবেদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবে সরকার। সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনলাইনে কেবিনেট বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাকে বলেছেন তিনি একটি দরখাস্ত পেয়েছেন৷ আগামী সেপ্টেম্বরের ২৪ তারিখ ৬ মাস শেষ হয়ে যাবে (খালেদা জিয়ার অস্থায়ী মুক্তির মেয়াদ)। তারা সেটার এক্সটেনশন চেয়েছেন। স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী সেই দরখাস্তের কপি আমাদের কাছে পাঠিয়েছেন। তবে সেটা এখনও আমার কাছে এসে পৌছায়নি। পৌঁছালে দেখবো।’

‘দরখাস্তে কী লিখেছেন সেটা এখনও আমি জানি না। সেক্ষেত্রে আমি কী বিবেচনা করবো দরখাস্ত না পড়ে কথা বলাটা আমার ঠিক হবে না,’ বলেন আইনমন্ত্রী।

গত মঙ্গলবার খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের কাছে আবেদন জমা দেন যা পরে আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

খালেদা জিয়াকে জামিন দেয়া হয়নি, মানবিক দিক চিন্তা করে তাকে মুক্তি দেয়া হয়েছিল বলে উল্লেখ করেন আনিসুল হক।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমি প্রথমে কারেকশন করতে চাই খালেদা জিয়া জামিনে নেই। কোনো আদালত থাকে জামিন দেয়নি। গত মার্চ মাসে তার পরিবার থেকে একটি দরখাস্ত করা হয়েছিল স্বারাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে। খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য নির্বাহী আদেশে তাকে জেলখানা থেকে মুক্তি দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী মানবিক দিক চিন্তা করে আমাদেরকে দিক নির্দেশনা দিয়েছিলেন ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১১ ধারায় তার (খালেদা) দণ্ডাদেশ স্থগিত করে তাকে ৬ মাসের জন্য মুক্তির ব্যবস্থা করতে।’

গত ২৫ মার্চ খালেদা জিয়া মুক্তি পেয়েছিলেন। সূত্র: ইউএনবি

Leave a Reply