১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | মঙ্গলবার, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, হেমন্তকাল

ক্রিকেটারদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য কোচ নিয়োগ দিল অস্ট্রেলিয়া

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০, ৭:১৯ অপরাহ্ণ



ক্রিকেটারদের জন্য মানসিক স্বাস্থ্য কোচ নিয়োগ দিল অস্ট্রেলিয়া। ছবি সংগৃহীত

ক্রীড়া ডেস্ক:
দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরায় খেলোয়াড়দের করোনভাইরাস থেকে রক্ষার্থে জৈব-সুরক্ষা পরিবেশের সাথে মানিয়ে নিতে এক জন মানসিক স্বাস্থ্য কোচ নিয়োগ দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। পাশাপাশি বক্সিং সেশনও চালু করেছে তারা।
জৈব সুরক্ষা পরিবেশে ইংল্যান্ডে পাঁচ সপ্তাহ সফর শেষ করে দেশে ফিরে অ্যাডিলেড ওভাল সংলগ্ন একটি হোটেলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে আছে আইপিএল খেলতে না যাওয়া অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড়রা। সফরে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিতে অস্ট্রেলিয়া। তবে টি-২০ সিরিজ হারে অসিরা।

কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারের মত অনেককেই দেশে ফিরে আরো ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হচ্ছে। এছাড়া অস্ট্রেলিযার আসন্ন ক্রিকেটীয় মৌসমুকে সামনে রেখে অপেক্ষায় থাকা আরো কিছু খেলোয়াড়কেও থাকতে হচ্ছে এ কোয়ারেন্টাইনে।

পরিবার ছেড়ে খেলোয়াড়দেরকে দীর্ঘ সময় জৈব-সুরক্ষা পরিবেশে থাকতে হবে বিবেচনায় নিয়ে ল্যাঙ্গার মানসিক স্বাস্থ্য পরিচালনার বিষয়ে বেশ সচেতন। কারন খেলোযাড়দের শারীরিক সুস্থতার জন্য মানসিক স্বাস্থ্য পরিচালনা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ নিজ মাঠে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে ভালোভাবে প্রস্তুতির দরকার।

জুম কলে সোমবার ল্যাঙ্গার বলেন, ‘আমরা যখন আমাদের ক্রীড়াবিদদের সম্পর্কে কথা বলি, তখন সর্বদাই আমাদের স্বীকার করতে হবে, ক্রিকেটার হোক বা ফুটবলার হোক বা রাগবি খেলোয়াড় হোক, তারাও মানুষ, আমাদের অবশ্যই এটি শ্রদ্ধা করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘অবশ্যই চ্যালেঞ্জ আছে তবে আমরা সে সর্ম্পকে সচেতন। সকলের শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকা নিশ্চিত করতে তাদের প্রতি আমাদের নজর রাখতে হবে।’

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া গ্রীষ্মের সময়সূচি প্রকাশের সময় ল্যাঙ্গার বলেছিলেন ‘খেলোয়াড়দের কারো কারো মুখ থেকে রক্ত বের হয়ে গিয়েছিলো।’

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এমনও পূর্বাভাস দিয়েছে, প্রতিশ্রুতি খেলার উপর নির্ভর করে, তাই করোনাভাইরাসের প্রোটোকলের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত পরিবেশে কাউকে কাউকে ১৫০ দিন পর্যন্ত অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হতে পারে।

তিনি বলেন, ‘পরিবার ও বাড়ি ছেড়ে অনেক দীর্ঘ সময় তাদেরকে বাইরে থাকতে হব। তবে আমরা জানি, ক্রিকেট অব্যাহত রাখতে আমাদের ত্যাগ স্বীকার করতে হবে এবং আমরা মানুষকে বিনোদন দিয়ে থাকি।’

খেলোয়াড়দের সহায়তার জন্য, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া নতুন মানসিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপক নিয়োগ করেছে এবং ল্যাঙ্গার, বক্সিং চালু করেছে।

তিনি বলেন, ‘আমি এটি সারাজীবন ধরেই জানি, ফিট ও সুস্থ থাকার অনেক সুবিধা রয়েছে।’

কিন্তু এগুলো প্রতিযোগিতার জন্য, মজার জন্য নয়।

ল্যাঙ্গার বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন ধরে বলছি, ব্যাটিংএর জন্য সেরা হলো অনুশীলন, বিশেষভাবে বক্সিং, কারন আপনাকে মনোনিবেশ করতে হবে। এটি ফুটওয়ার্ক, এটি কৌশল। আপনার ভালো রক্ষনাত্মক ও দোষও আছে।’

ডিসেম্বরের শুরুতে দেশের মাটিতে ভারতের বিপক্সে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজ রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার। নভেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে এক ম্যাচের টেস্টও আছে অসিদের। যদিও তারিখ ও ভেন্যু এখনো নিশ্চিত নয়।

ল্যাঙ্গার বলেন, ‘ইংল্যান্ডের বাইরে আমরা সত্যিকারের আত্মবিশ্বাস নিবো, আইপিএল থেকে ফিরে আসা ছেলেরা, সত্যিকারের আত্মবিশ্বাস নিবে। গ্রীষ্মে চারটি শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচ রয়েছে। তাই আমাদের পুরোপুরি প্রস্তুত হতে হবে। আমরা অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ক্রিকেট খেলতে নামবো। ভারতের বিপক্ষে লড়াইয়ের জন্য আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে।’ সূত্র: বাসস

Leave a Reply